মো: নয়ন সরদার শার্শা প্রতিনিধি:


প্রবাসীসহ বিশ্বের সকল ব্যক্তির করোনা মুক্তির আশায় এতিমখানার হাফেজ দের মাঝে পবিত্র আল-কোরআন বিতরণ করলেন দেশ সেরা উদ্ভাবক শার্শার কৃতি সন্তান মিজানুর রহমান। পরপারে মুক্তি ও শান্তি কামনায় আজ শুত্রবার জুম্মার সময় নিজস্ব অর্থায়নে এতিম হাফেজদের মাঝে এই পবিত্র কুরআন শরীফ , মাক্স ও খাদ্য এবং গাছের চারা বিতরণ করেন তিনি। উদ্ভাবক মিজান বলেন, করোনা ভাইরাসের ভয়াবহ ক্রান্তিকালে গোটা বিশ্ব স্তব্ধ। এই সময়ে যে সকল দেশীয় ভাই বোন আত্মীয় স্বজনরা প্রবাসে জীবন যাপন করছে তাদের এই মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা থেকে মুক্তি কামনা করে পবিত্র আল-কোরআন বিতরণ করেছি। এবং এতে আমাকে যারা সহযোগীতা করছে তাদের সকলের প্রতি আমি কৃতঞ্জতা জানাই৷ আমার এই মহান কাজে এগিয়ে আশার জন্য৷সবাইকে একে একে এই মহান কাজে এগিয়ে আসার অনুরোধ ও করেন৷ শার্শা উপজেলা ও উপজেলার বাইরের সকল উপজেলার এতিমখানা গুলোতে পর্যায়ক্রমে আল-কোরআন গাছের চারা মাক্স ও খাবার বিতরণ করার উদ্যোগ নিয়েছি। যতদিন করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা বিরাজ করবে ততদিন পর্যম্ত আমার এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। প্রতিদিনের খাবার বিতরণের যে কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। তার পাশাপাশি পবিত্র কুরআন বিতরণ করে সৃষ্টিকর্তার কাছে করোনা ভাইরাস সহ সকল প্রকার বালামুসিবত থেকে দোয়া কামনা করবো। আমি আমার সকল শুভানুদ্ধায়ীদের কাছে দোয়া কামনা করছি। আমি যেন জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত এই ভাবে দেশ ও দেশের মানুষের মঙ্গল কামনায় পথ চলতে পারি। সেই সাথে আমার দেশ ও দেশের বাইরের সকল ফেসবুক ফ্রেন্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। যারা আমাকে প্রতিটি মুহূর্তে বিভিন্ন প্রকার সহযোগিতা, আাশা, সাহস ও অনুপ্রেরণা জাগিয়েছে। আজ নিজামপুর কওমি (বালক বালিকা) মার্দ্রাসায় গাছের চারা ,খাবার ও মাস্ক বিতরণ করা হয় এসময় উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক ও সমাজসেবক জসীম উদ্দীন জনাব সোহেল রানা ও জনাব বাদল হোসেনসহ নয়ন সরদার । ও মার্দ্রাসার শিক্ষক বৃন্দ৷ এছাড়া বাদল নার্সারীর মালিক বাদল হোসেন আমাকে সার্বিক সহযোগীতা করছে৷ সবাই তার সুস্থতা কামনা করবেন এবং শার্শায় নার্সারীর মালিক বাদল নয় এমন বাদল প্রতিটি এলাকায় হতে হবে৷

Sharing is caring!